সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৮ কার্তিক ১৪২৪, ২ সফর, ১৪৩৯ | ০৬:১৬ পূর্বাহ্ন (GMT)
ব্রেকিং নিউজ :
X
শিরোনাম :
  • নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা রাষ্ট্রপতিকে দিয়েছে আ.লীগ: কাদের
  • ইসি নয়, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে হার্ডলাইনে যাবে বিএনপি
রোববার, ০৯ অক্টোবর ২০১৬ ০৫:১৯:৪০ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের ভবিষ্যৎ কী?

ডেস্ক রিপোর্ট: আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনের কার্যকাল ফুরাবে ২০২৪ সালে। প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত বিজ্ঞানীরা এ তথ্য জানিয়েছেন। আর তার পর থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছে, কী হবে মহাকাশে মানুষের গবেষণার ভবিষ্যৎ? বর্তমানে পৃথিবীর বাইরে মানুষের একমাত্র বাসস্থান আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন। পৃথিবীর চারিদিকে চক্কর কাটে সেটি। একসঙ্গে ৬ জন মহাকাশচারী থাকতে পারেন সেখানে। এই মহাকাশ স্টেশন তৈরি ও তাতে গবেষণায় অংশগ্রহণ করে মূলত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ইউরোপের দেশগুলি ও জাপান। কানাডাও মহাকাশ স্টেশনের বেশ কিছু অংশ সরবরাহ করেছে। ২০২৪ সালে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হবে মাহাকাশ স্টেশন। কিন্তু চীন ছাড়া বিকল্প মহাকাশ স্টেশন তৈরির পরিকল্পনা নেই কোনো দেশের। ২০১৮ সালে নিজেদের মহাকাশ স্টেশন উৎক্ষেপন করবে চীন। ২০২২ সালে সম্পূর্ণ হতে পারে চীনের প্রকল্প। এছাড়া রাশিয়ারও মহাকাশ স্টেশন তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। তবে কবে নাগাদ তাদের এই প্রকল্প হবে তার কোনো সঠিক তথ্য নেই। এখন মহাকাশ স্টেশনে থাকেন মূলত মার্কিন ও রুশ মহাকাশচারীরা। এছড়া ইউরোপ ও জাপানের মহাকাশচারীরাও সেখানে যান কখনো। মহাকাশ স্টেশনের একপাশে থাকেন রুশরা, অন্যদিকে মার্কিনিরা। প্রায় মহাকর্ষহীন অবস্থায় বিভিন্ন বস্তু ও বিক্রিয়ার চরিত্র জানতে নিরন্তর গবেষণা চলে সেখানে। এই মহাকাশ স্টেশন তৈরির আগে মির নামে একটি মহাকাশ স্টেশন তৈরি করেছিল রাশিয়া। যদিও তা বেশ কয়েকবছর আগে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এর পর নিয়ন্ত্রিতভাবে তা আছড়ে ফেলা হয়েছে প্রশান্ত মহাসাগরের বুকে।

 

আরো খবর