সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৮ কার্তিক ১৪২৪, ২ সফর, ১৪৩৯ | ০১:৩১ অপরাহ্ন (GMT)
শিরোনাম :
  • নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা রাষ্ট্রপতিকে দিয়েছে আ.লীগ: কাদের
  • ইসি নয়, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে হার্ডলাইনে যাবে বিএনপি
বুধবার, ১১ অক্টোবর ২০১৭ ০৫:৫৪:২৪ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

ব্লু হোয়েলে আসক্ত চবি শিক্ষার্থীকে আত্মহত্যার পথ থেকে বাঁচাল পুলিশ

অনলাইনে ভয়ঙ্কর সুইসাইড গেম ব্লু হোয়েলে আসক্ত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে আত্মহত্যার পথ থেকে বাঁচালো পুলিশ। চট্টগ্রাম জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মসিউদ্দৌলা রেজা আজ বুধবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ভয়ঙ্কর অনলাইন ব্লু হোয়েল গেম খেলে প্রায় আতœহত্যার পথে চলে গিয়েছিল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ওই শিক্ষার্থী। খবর পেয়ে গতকাল মঙ্গলবার তাকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়। ২৪ ঘন্টারও বেশি সময় কাউন্সেলিংয়ের পর ওই ছাত্র স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে। মসিউদ্দৌলা রেজা বলেন, গত ৫ই অক্টোবর রাত থেকে ওই শিক্ষার্থী অনলাইনে ব্লু হোয়েল গেম খেলতে শুরু করে। এতে পর পর কয়েকটি ধাপ অতিক্রমের পর সে আতœহত্যার অপেক্ষায় ছিল। শিক্ষার্থীর বিবরণ মতে, গত ৫ই অক্টোবর তার ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে একটি লিংক আসে। লিংকটি ক্লিক করলে গেমটি মোবাইল ফোনে ডাউনলোড হয়ে যায়। এরপর গেমটি খেলবে কি না অ্যাডমিন থেকে সম্মতি জানতে চাওয়া হয়। সম্মতি দিলে প্রথম ধাপে গভীর রাতে পুরো ক্যা¤পাস হাঁটার চ্যালেঞ্জ দেওয়া হয়। সেটিতে উত্তীর্ণ হলে দ্বিতীয় ধাপে হলের ছাদের রেলিংয়ে হাঁটার চ্যালেঞ্জ দেওয়া হয়। এরপর তৃতীয় ধাপে ব্লেড দিয়ে হাত কেটে তিমি আঁকেন তিনি। চতুর্থ ধাপে সারাদিন চুপচাপ বসে থাকেন তিনি। এসব চ্যালেঞ্জ পার করে ওই শিক্ষার্থী। কিন্তু হঠাৎ বিষয়টি আঁচ করতে পেরে তার হলের এক রুমমেট ফেসবুকে পুলিশের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। বিষয়টি নজরে এলে মঙ্গলবার দুপুরে আসক্ত ছাত্রকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়। হয়তো আর কয়েকটি ধাপ পার হলেই ওই শিক্ষার্থী আত্মহত্যার পথে পা বাড়াতো বলে জানান মসিউদ্দৌলা রেজা। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মসিউদ্দৌলা রেজা বলেন, কাউন্সিলিংয়ের পর ওই শিক্ষার্থী স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে নিজের ভুল বুঝতে পেরেছে। ফলে তাকে মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মসিউদ্দৌলা রেজা আরো বলেন, ব্লু হোয়েলে আসক্ত শিক্ষার্থীকে আমরা ৬ মাস পর্যবেক্ষণে রাখব। তাকে কোন ধরনের স্মার্টফোন ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না। এই শর্তে তাকে প্রক্টরের কাছে দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে কেউ এই গেম খেললে দন্ডবিধির ৩০৯ ধারা তাকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আরো খবর