শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, ১ মুহাররম, ১৪৩৯ | ০১:০০ পূর্বাহ্ন (GMT)
শিরোনাম :
  • নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা রাষ্ট্রপতিকে দিয়েছে আ.লীগ: কাদের
  • ইসি নয়, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে হার্ডলাইনে যাবে বিএনপি
বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৩:৪১:৪৮ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

জনগণের সম্পদ যারা লুটে নিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘জনগণের সম্পদ যারা লুটে নিয়েছে, নিশ্চয়ই তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ বুধবার জাতীয় সংসদে জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমামের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন। শুধু দুবাই নয়, অন্তত ১২ দেশে জিয়া পরিবারের সম্পদ আছে, যার প্রাক্কলিত মূল্য এক হাজার ২০০ কোটি টাকা। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ইনটেলিজেন্স নেটওয়ার্ক (জিআইএন) সম্প্রতি এ ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বলে সংসদে দাবি করেন ফখরুল ইমাম। জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তথ্যগুলো যখন বের হয়েছে, তখন নিশ্চয়ই আমাদের কাছে তা আছে। এটা নিয়ে তদন্ত চলছে। তাছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের অধীনে মানি লন্ডারিংয়ের জন্য একটি তদন্তের ব্যবস্থা আছে। সেই সূত্রেও তদন্ত করা হচ্ছে। এই তদন্তেরর মধ্য দিয়ে সত্যতা যাচাই করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ তিনি বলেন, তদন্ত করে যখনই সঠিক তথ্য পাব কোথায় কীভাবে রয়েছে নিশ্চয় আমরা ফেরত আনার পদক্ষেপ নেব। ইতোমধ্যে আমরা কিছু পদক্ষেপ নিয়েছি। তদন্ত চলার স্বার্থে হয়তো সব আমি বলতে পারলাম না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর মানুষ হত্যা করে, খুন করে। পরবর্তীতে আমরা ক্ষমতায় আসার পর আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারা থেকে শুরু করে একদিকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের সৃষ্টি করে অপরদিকে ক্ষমতায় থাকতে দুর্নীতি ও অর্থপাচার এ ধরনের বহু অভিযোগ তো জনগণ সব সময় করেছে এবং এটা সবাই জানে। এজন্য খালেদা জিয়ার ছোট ছেলের টাকা ফেরত আমরা এনেছি। বাংলাদেশের ইতিহাসে পাচার করা টাকা ফেরত আনা সম্ভব হয়েছে আমাদের সরকারের আমলে। তিনি আরও বলেন, আমি বিষয়টি সংসদে তোলার জন্য সংসদ সদস্যকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। কারণ আমরা যদি তুলে ধরি বা সরকার থেকে তুলে ধরলেই দেশে বহু লোক আছে মায়াকান্না করবে আর বলবে আমরা নাকি হিংসাত্মক হয়ে পড়ি। যেহেতু এটা অপজিশন থেকে আসছে মানুষ এটা উপলব্ধি করতে পারবে জনগণের সম্পদ কীভাবে লুট করেছে। এজন্য বাংলাদেশ পাঁচ পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। কিন্তু দেশের উন্নতি করতে পারেনি, বরং আর্থসামাজিক অবস্থার অবনতি ঘটেছিল বিএনপি-জামায়াত আমলে।

CLOSE[X]CLOSE

আরো খবর