মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ১ কার্তিক ১৪২৫, ৫ সফর, ১৪৪০ | ০১:১৪ পূর্বাহ্ন (GMT)
শিরোনাম :
  • নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা রাষ্ট্রপতিকে দিয়েছে আ.লীগ: কাদের
  • ইসি নয়, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে হার্ডলাইনে যাবে বিএনপি


শুক্রবার, ১২ অক্টোবর ২০১৮ ০৩:০৮:১২ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

১১ বলেই টি-২০ ম্যাচ জেতার কৃতিত্ব নেপালের

আইসিসি ওয়ার্ল্ড টি-২০’র এশিয়ান অঞ্চলের কোয়ালিফায়ারে দ্রুত ম্যাচ শেষ করার অলিখিত প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। কিছুদিন আগেই মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মাত্র ১০ বলে ম্যাচ জিতে নেয় মালয়েশিয়া। সপ্তাহ যেতে না যেতেই আরও ২টি টি-২০ ম্যাচের নিস্পত্তি হয়ে যায় ২০ বলের আগেই। মায়ানমারের বিরুদ্ধে মালয়েশিয়া জিতেছিল ডাকওয়ার্থ-লুইস নিয়মে। সেক্ষেত্রে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচের দৈর্ঘ্য ছোট করে দিয়েছিলেন ম্যাচ অফিসিয়ালরা। প্রথম ইনিংস শেষ হওয়ার সুযোগ ছিল না প্রকৃতি বাধা হয়ে দাঁড়ানোয়। তবে চীনের বিরুদ্ধে নেপালের ১০ উইকেটে জয় তুলে নেওয়ার পিছনে প্রকৃতি বা ডাকওয়ার্থ-লুইস নিয়মকে কোনও ভাবেই দায়ি করা যাবে না। পুরো কৃতিত্বটাই দাবি করতে পারেন নেপালি ক্রিকেটাররা। টসে জিতে নেপাল প্রথমে ব্যাট করতে পাঠায় চীনকে। কোন রকমে ১৩ ওভার ক্রিজে কাটিয়ে চিন অলআউট হয়ে যায় ২৬ রানে। মাত্র তিনজন ব্যাটসম্যান খাতা খোলার সুযোগ পান। ওপেনার হং জিয়াং করে ১১ রান। চেন জিনফেং ১ রান করে আউট হন। দেংঝি মা ৫ রান করে ক্রিজ ছাড়েন। দলের আটজন ব্যাটসম্যানের ব্যক্তিগত সংগ্রহ শূন্য। নেপালের লামিছানে, রাজবংশী ও রেগমি তিনটি করে উইকেট ভাগ করে নেন নিজেদের মধ্যে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নেপাল ১.৫ ওভারে বিনা উইকেটে ২৯ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়। ওপেন করতে নেমে ভান্ডারি ৮ বলে ২৪ ও আইরি ৩ বলে ৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। অর্থাৎ মাত্র ১১ বলেই আইসিসি অনুমোদিত টি-২০ ম্যাচ জেতার কৃতিত্ব অর্জন করে নেপাল। চীন অবশ্য সস্তায় অলআউট হওয়ার দৌড়ে বাকিদের থেকে বেশ কয়েক পা এগিয়ে রয়েছে। কেননা ঠিক পরের ম্যাচেই মালয়েশিয়ার বিরুদ্ধে ৩০ রানে অলআউট হয়ে যায় তারা। এবার চিনা ইনিংস স্থায়ী হয় ১০ ওভার। আটজন থেকে শূন্য রান করা ব্যাটসম্যানের সংখ্যা কমে দাঁড়ায় পাঁচে। পাল্টা ব্যাট করতে নেমে মালয়েশিয়া ৩ ওভার, অর্থাৎ ১৮ বলে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ৩১ রান তুলে নেয়। টুর্নামেন্টের ছ’টি ম্যাচে চীনের স্কোর যথাক্রমে ৩৫/৯ (বনাম থাইল্যান্ড), ৪৫ (বনাম ভুটান), ২৬ (বনাম সিঙ্গাপুর), ৪৮ (বনাম মায়ানমার), ২৬ (বনাম নেপাল) ও ৩০ (বনাম মালয়েশিয়া)। থাইল্যান্ড ম্যাচ জেতে ১৬ বলে। এছাড়া ভুটান ২৩ বলে, সিঙ্গাপুর ১৫ বলে এবং মায়ানমার ৪৭ বলে জয় তুলে নেয়।





আরো খবর