বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৭, ৩ কার্তিক ১৪২৪, ২৭ মুহাররম, ১৪৩৯ | ০৬:৩৯ অপরাহ্ন (GMT)
শিরোনাম :
  • নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা রাষ্ট্রপতিকে দিয়েছে আ.লীগ: কাদের
  • ইসি নয়, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে হার্ডলাইনে যাবে বিএনপি
মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর ২০১৭ ০১:০৫:২৮ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

প্রধান বিচারপতিকে সরকার সন্ত্রাসী কায়দায় ছুটি নিতে বাধ্য করেছে: রিজভী

চট্টগ্রাম: বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে সরকার সন্ত্রাসী কায়দায় ছুটি নিতে বাধ্য করেছে। একজন সুস্থ মানুষকে জোর করে অসুস্থ বানিয়ে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন রুহুল কবির রিজভী। মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত লেবার পার্টির প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, এই সরকার দুর্বিনীত সরকার বলেই সুপ্রিমকোর্টের চিফ জাস্টিসকে সন্ত্রাসী কায়দায় ছুটি নিতে বাধ্য করেছে। এরা বেআইনি সরকার। দুর্বিনীত সরকার, ডাকাতির সরকার। “সেই কারণে একজন বহাল তবিয়তে সুস্থ মানুষ গ্রীষ্মকালীন ছুটি কাটিয়ে তিনি আবার আদালতে বসলেন। তার পরের দিন কীভাবে তাকে সরানো হলো? এটা কি বাংলাদেশের মানুষ জানে না? বাংলাদেশের মানুষ একেবারে আপনি তাদেরকে বেকুব মনে করেন? নির্বোধ মনে করেন- যে কিছুই বুঝতে পারে না? কারা যাচ্ছে, কারা থ্রেট করছে, কারা জালিয়াতির ছুটি স্বাক্ষর করেছে সব বাংলাদেশের মানুষ জানে,” বলেন রিজভী। তিনি আরও বলেন, এর প্রতিটি অপরাধ, প্রতিটি অপকর্ম, প্রতিটি বেআইনি কর্মকাণ্ডের হিসাব কড়ায় গণ্ডায় জনতার আদালতে নেয়া হবে। সংবিধানে দেশের নাগরিকদের স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার অধিকার দেয়া হলেও এখন সেই অধিকার খর্ব করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ‘পুলিশের অনুমতির কথা কোথায় লেখা আছে? সংবিধানে স্পষ্টভাবে লেখা আছে যে, বাংলাদেশের নাগরিক তার চলাচলের স্বাধীনতা আছে। তার সমাবেশ করার স্বাধীনতা আছে। কথা বলার স্বাধীনতা আছে। এই সংবিধানকে লঙ্ঘন করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, আমরা না। আমরা যারা এখানে বসে আছি, আমরা আইনের পক্ষে। আমরা সংবিধানের পক্ষে।’ লেবার পার্টির প্রতিনিধি সম্মেলনে দলটির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, নগর বিএনপির সভাপতি ডা.শাহাদাত হোসেন, সহসভাপতি আবু সুফিয়ান, সাধারন সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর, লেবার পার্টির নগর সভাপতি আলাউদ্দিন আলী বক্তব্য দেন। সেখান থেকে বের হলে ডা. ইরানসহ লেবার পার্টির তিন নেতা এবং যুবদল ও ছাত্রদলের ৮ নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ। পরে লেবার পার্টির তিন নেতাকে ছেড়ে দেয়া হলেও যুবদল ও ছাত্রদলের নেতারা ছাড়া পাননি।

CLOSE[X]CLOSE

আরো খবর