শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, ১ মুহাররম, ১৪৩৯ | ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন (GMT)
শিরোনাম :
  • নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা রাষ্ট্রপতিকে দিয়েছে আ.লীগ: কাদের
  • ইসি নয়, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে হার্ডলাইনে যাবে বিএনপি
সোমবার, ১৭ জুলাই ২০১৭ ১২:৩৭:২০ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

অনুমতি ছাড়া মানবদেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন করলে শাস্তি

সাজার মেয়াদ কমিয়ে ও জরিমানা বাড়িয়ে ‘মানবদেহে অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সংযোজন (সংশোধন) আইন-২০১৭’–এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এই আইনের খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়। সভাশেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আশরাফ শামীম সংবাদ ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান। বিদ্যমান আইনে কোনো বিধান লঙ্ঘন করলে অথবা লঙ্ঘনের সহায়তা করলে সর্বোচ্চ ৭ বছর ও সর্বনিম্ন ৩ বছর মেয়াদে সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হবে। এছাড়া কমপক্ষে ৩ লাখ টাকা অথবা উভয় দণ্ড দেওয়ার বিধান আছে। এখন প্রস্তাবিত আইনে কয়েকটি ভাগে এই সাজার বিধান রাখা হয়েছে। যেমন: কোনো ব্যক্তি নিকট আত্মীয় সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য বা তথ্য প্রদানে উৎসাহিত বা ভীতি দেখালে এই আইনের অধীনে তা অপরাধ হবে। সে জন্য সর্বোচ্চ দুই বছরের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড দেওয়া যাবে। উল্লেখিত বিধান ছাড়াও এই আইনের অন্যান্য বিধান লঙ্ঘন করলে অথবা লঙ্ঘনে সহায়তা করলে সর্বোচ্চ তিন বছরের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা যাবে। এই রকম আরও কয়েকটি ভাগে সাজা রাখা হয়েছে। প্রস্তাবিত আইনে অঙ্গপ্রত্যঙ্গ দেওয়ার ক্ষেত্রে নিকট আত্মীয়ের সংজ্ঞায় নাতি-নাতনি, খালাতো ভাইবোনসহ সম্পর্কের পরিধি আরও বাড়ানো হয়েছে। এ ছাড়া প্রস্তাবিত আইন অনুযায়ী কোনো হাসপাতাল সরকারের অনুমতি ছাড়া অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সংযোজন করতে পারবে না। এই আইন পাস হওয়ার পর ৬০ দিনের মধ্যে এই অনুমোদন নিতে হবে। তবে যেসব সরকারি হাসপাতালে বিশেষায়িত ইউনিট আছে তাদের এই অনুমতি লাগবে না।

CLOSE[X]CLOSE

আরো খবর