শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ১২ ফাল্গুন ১৪২৪, ৮ জমাদিউস সানি, ১৪৩৯ | ০৪:১৫ পূর্বাহ্ন (GMT)
শিরোনাম :
  • নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা রাষ্ট্রপতিকে দিয়েছে আ.লীগ: কাদের
  • ইসি নয়, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে হার্ডলাইনে যাবে বিএনপি


মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারী ২০১৮ ০৬:১৪:৩৪ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

দ. আফ্রিকায় মুক্তিপণ দেয়ার পরও বাংলাদেশিকে খুন

দক্ষিণ আফ্রিকায় মুক্তিপণ দিয়েও বাঁচানো যায়নি এক বাংলাদেশিকে(৩৪)। অপহরণকারীরা মুক্তিপণ নিয়ে তাকে হত্যা করেছে। ওই বাংলাদেশির নাম, ঠিাকানা জানা যায়নি। এ খবর দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার সংবাদভিত্তিক অনলাইন টাইমস লাইভ। এতে বলা হয়েছে, গত ১১ জানুয়ারি অপহরণ করা হয় ওই বাংলাদেশিকে। দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্রাইবার্গের কাছে সেতলাগোলে থেকে তাকে অপহরণ করা হয় বলে জানিয়েছেন পুলিশের মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার সাবাতা মোকগাওয়াবোনে। তিনি বলেছেন, নিহত ওই বাংলাদেশি একটি দোকানে যাচ্ছিলেন। এ সময় তার গাড়ির ভিতরে পিছন দিকে লুকিয়ে থাকা অজ্ঞাত ব্যক্তিরা তার গাড়ির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় । তাকে অপহরণ করে। এটা বুঝতে পেরে ওই দোকানদার পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ একশনে নামে। দোকানি পুলিশকে যেটুকু তথ্য দেন তার ওপর ভিত্তি করে মাঠে নামে পুলিশ। তবে নিহতের আত্মীয়স্বজন বা তার বন্ধুদের কারো কাছ থেকে পুলিশ সহায়তা পায়নি। এরই মধ্যে অপহরণকারীরা ওই বাংলাদেশির মোবাইল ফোন ব্যবহার করে তার আত্মীয়-স্বজনের কাছে মুক্তিপণ দাবি করে। তখনও পুলিশে এ বিষয়টি অবহিত করেন নি তারা। ওই মুক্তিপণ দিয়ে তারা তাকে মুক্ত করার চেষ্টা করেন। দেয়া হয়ে যায় মুক্তিপণের টাকা। এরপর ওই বাংলাদেশিকে মাহিকেংয়ে একটি ফিলিং স্টেশনে পৌঁছে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় অপহরণকারীরা। আত্মীয়-স্বজনরা সেখানে যান তার সন্ধানে। কিন্তু তাকে সেখানে পাওয়া যায় না। এ অবস্থায় তারা পুলিশের দ্বারস্থ হন। একটি অপহরণ মামলা করেন। পুলিশ বলেছে, এরপরই কে৯ ইউনিটসহ তাদের দল অভিযানে নামে। ১২ জানুয়ারি সেতলাগোলেতে একটি ঘন জঙ্গলের কাছে নিজের গাড়ির ভিতর ওই বাংলাদেশির লাশ উদ্ধার করে। পুলিশ বলেছে, এ বিষয়ে এখনও তদন্ত চলছে। এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি





আরো খবর